আপনার অবস্থান
মুলপাতা > অন্যান্য সংবাদ > ঢাকায় দ্বিতীয় বাংলাদেশ রিটেইল কংগ্রেস অনুষ্ঠিত

ঢাকায় দ্বিতীয় বাংলাদেশ রিটেইল কংগ্রেস অনুষ্ঠিত

বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের (বিবিএফ) উদ্যোগে রাজধানীর হোটেল লা মেরিডিয়ান, ঢাকায় আজ ১৮ নভেম্বর শনিবার দ্বিতীয় বাংলাদেশ রিটেইল কংগ্রেস অনুষ্ঠিত হয়েছে। দেশের অন্যতম রিটেইল চেইন শপ প্রতিষ্ঠান স্বপ্নের পরিবেশনায় আয়োজিত এই রিটেইল কংগ্রেস বা সম্মেলনে স্থানীয় ৩৫০ জন রিটেইল বিশেষজ্ঞ এবং কর্মজীবিরা অংশগ্রহণ করেন।

এ আয়োজনে পৃষ্ঠপোষকতা করেছে মুন্নূ সিরামিক এবং লোটো বাংলাদেশ।

দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত এই সম্মেলনে দেশ-বিদেশের রিটেইল খাতে চারজন বিশেষজ্ঞ চারটি মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। এছাড়া তিনটি অধিবেশনে প্যানেল আলোচনা এবং একটি ব্রেক আউট সেশনে দেশীয় বিশেষজ্ঞরা নিজেদের সুচিন্তিত মতামত ব্যক্ত করেন। এ ছাড়াও সম্মেলনে দুইটি দেশীয় রিটেইল প্রতিষ্ঠানের কেইস স্টাডি উপ¯থাপন করা হয়।

দ্বিতীয়বারের মতো আয়োজিত এই সম্মেলনের প্রতিপাদ্য ছিল ‘রিডিফাইনিং রিটেইল ইন বাংলাদেশ’ বা ‘বাংলাদেশের খুচরা বিক্রি খাতের পুনর্মূল্যায়ন’।

সম্মেলনে উদ্বোধনী বক্তব্য দেন বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের (বিবিএফ) প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) জনাব শরিফুল ইসলাম। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন এসিআই লজিস্টিকস লিমিটেডের নির্বাহী পরিচালক সাব্বির হাসান নাসির, এক্সপ্রেস লেদার প্রডাক্টস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী জামিল ইসলাম এবং মুন্নু গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিস এর ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর রাশিদ মাইমুনুল ইসলাম।

সম্মেলনে মূল প্রবন্ধগুলো উপস্থাপন করেন রিলায়েন্স রিটেইলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) এবং সুপারমার্কেটওয়ালা বইয়ের লেখক দামোদর মল। তাঁর বক্তব্যের বিষয় ছিল ‘অ্যা ওয়াক উইথ সুপরমার্কেটওয়ালাঃ শপকিপার অর এজেন্ট অব মডার্নিটি?’

একটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ফিলিপাইনের ফ্র্যাঞ্চাইজি গুরু ও জিএমবি ম্যানেজমেন্ট সার্ভিসেস গ্লোবাল ইনকরপোরেশনের প্রেসিডেন্ট আরমান্দো ও. বার্তোলোমে। তার প্রবন্ধের বিষয় ছিল, ‘জাম্প স্টার্টিং দি রিটেইল ইন্ডাস্ট্রি’।

পিডাব্লিউ এর টেকনোলজি কনসালটিংয়ের পার্টনার অরিজিৎ চক্রবর্তীর উপস্থাপিত প্রবন্ধের শিরোনাম ছিল ‘বিল্ডিং ব্লকস অব দি ফিউচার-হাউ টেকনোলজি ক্যান হেল্প ইন রিটেইল বিজনেস গ্রোথ’।

কফি ডে গ্লোবাল লিমিটেডের হেড অব ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস শাবরি প্রভাকর উপস্থাপন করেন আরেকটি প্রবন্ধ। তার প্রবন্ধটির বিষয় ছিল, ‘ব্রিউইং অ্যা গ্রেট কাস্টমার এক্সপেরিয়েন্স-দ্য ক্যাফে কফি ডে ওয়ে’।

তিনটি প্যানেল অধিবেশনে দেশের রিটেইল ইন্ডাস্ট্রির প্রায় ১৮ জন বিশেষজ্ঞ প্যানেল আলোচক হিসেবে অংশ নেন। এসব প্যানেল অধিবেশনে যেসব বিষয়ে জোর দেওয়া হয় সেগুলো এখানে এক এক করে তুলে ধরা হচ্ছে।

‘ফিউচার অব রিটেইল ফর বাংলাদেশ’ বা ‘বাংলাদেশে খুচরা বিক্রি খাতের ভবিষ্যত’ শীর্ষক আলোচনা সঞ্চালনা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (আইবিএ) অধ্যাপক ড. সৈয়দ ফারহাত আনোয়ার। এই অধিবেশনে প্যানেল আলোচকদের মধ্যে ছিলেন এক্সপ্রেস লেদার প্রডাক্টস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী জামিল ইসলাম, প্রাইড গ্রুপের পরিচালক অধ্যাপক মোহাম্মদ আবদুল মোমেন; এপিলিয়ন গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রিয়াজ উদ্দিন আল-মামুন; এপেক্স ফুটওয়্যার লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ নাসিম মঞ্জুর; ব্র্যাক এন্টারপ্রাইজেসের সিনিয়র ডিরেক্টর তামারা হাসান আবেদ।

দ্বিতীয় প্যানেল অধিবেশনে প্যানেল আলোচকদের মধ্যে ছিলেন রহিমআফরোজ সুপারস্টোরস লিমিটেডের (আগোরা) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরহাদ আহমেদ; তরুণ ইন্টারন্যাশনালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী ইসলাম; ফেয়ার গ্রুপের সিএমও মোহাম্মদ মেসবাহ উদ্দিন; র‌্যাংগস ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রুবাইয়াৎ জামিল ও এসিআই লজিস্টিকস লিমিটেডের (স্বপ্ন) নির্বাহী পরিচালক সাব্বির হাসান নাসির। এই পর্ব সঞ্চালনা করেন কিকশার সহপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) জীশান কিংশুক। তারা ‘টেকনোলজি ইন রিটেইল’ বা ‘খুচরা বিক্রয় কার্যক্রমে প্রযুক্তির ব্যবহার’ বিষয়ে তাদের বক্তব্য তুলে ধরেন।

তৃতীয় প্যানেল অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয় ‘স্কিল ডেভেলপমেন্ট ইন রিটেইল সেক্টর’ বা ‘খুচরা বিক্রি খাতে দক্ষতার উন্নয়ন’ বিষয়ে। এই অধিবেশনটি সঞ্চালনা করেন ব্র্যাক বিজনেস স্কুলের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ তারেক আজিজ।

প্যানেল আলোচকদের মধ্যে ছিলেন মার্কেটিং সোসাইটি অব বাংলাদেশ এর প্রেসিডেন্ট আশরাফ বিন তাজ; ব্র্যাক আড়ংয়ের সিওও মো. আশরাফুল আলম; এপেক্স ফুটওয়্যার লিমিটেডের সিওও রাজন পিল্লাই; হাতিলের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক সেলিম এইচ রহমান এবং ট্রান্সকম ইলেকট্রনিকস লিমিটেডের হেড অব বিজনেস ইয়ামিন শরিফ চৌধুরী।

হাতিল কমপ্লেক্স লিমিটেড এবং দারাজ বাংলাদেশ লিমিটেড দুইটি কেইস স্টাডি উপস্থাপন করে। হাতিল কমপ্লেক্স এর বিজনেস ডেভেলপমেন্ট এডভাইজার দেওয়ান আতিফ রশিদ একটি কেইস উপস্থাপন করেন যেটির টপিক ছিল “গোয়িং বিয়োন্ড বর্ডার”।

অপর কেইস স্টাডিটি উপস্থাপান করেন দারাজ বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সৈয়দ মুস্তাহিদাল হক, যেটির টপিক ছিল অনলাইন রিটেইল ম্যানেজমেন্ট।

এছাড়া সম্মেলনে একটি ব্রেক আউট সেশন অনুষ্ঠিত হয় যেটির টপিক ছিল “কুপন্সঃ দ্যা রিটেইল ক্যাটালিস্ট”। এটির সঞ্চালনায় ছিলেন সেলটিক ইন্ডিয়া ও আফ্রিকার ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবরাহাম পানোজ এবং তরুণ ইন্টারন্যাসনাল লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী ইসলাম।

দ্বিতীয় বাংলাদেশ রিটেইল কংগ্রেসের পরিবেশনায় ছিল স্বপ্ন। এ আয়োজনে পৃষ্ঠপোষকতা করেছে মুন্নূ সিরামিক এবং লোটো বাংলাদেশ। এছাড়া সহযোগীতায় ছিল ব্র্যাক আড়ং, হাতিল ও সেইলর।

সম্মেলনটি আয়োজনে আরো সহায়তা করেছে পারটেক্স ফার্নিচার ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড ও র‌্যাংগস তোশিবা। এতে ইভেন্ট পার্টনার হয়েছে লা মেরিডিয়ান ঢাকা। স্ট্র্যাটেজিক পার্টনার ছিল দ্য ডেইলি স্টার। মার্কেটিং সোসাইটি অব বাংলাদেশ (এমএসবি) ছিল নলেজ পার্টনার। এয়ারলাইন পার্টনার ছিল ইতিহাদ এয়ারওয়েজ।

জনসংযোগ পার্টনারের ভূমিকা পালন করেছে মাস্টহেড পিআর। টিভি পার্টনার ছিল একাত্তর টিভি। রেডিও পার্টনার হিসেবে ছিল রেডিও টুডে। এছাড়া সোস্যাল মিডিয়া পার্টনার হিসেবে ছির ওয়েবেবল।

Comments

comments

একই ধরণের সংবাদ