আপনার অবস্থান
মুলপাতা > শিল্প ও খাতসমূহ > টেলিযোগাযোগ > ৮২ দশমিক ৮ শতাংশ মুনাফা নিয়ে ব্যবসায়িক অগ্রগতি আজিয়াটা’র

৮২ দশমিক ৮ শতাংশ মুনাফা নিয়ে ব্যবসায়িক অগ্রগতি আজিয়াটা’র

মালয়েশিয়া-ভিত্তিক এশিয়ার অন্যতম টেলিযোগাযোগ কোম্পানি আজিয়াটা গ্রুপ বারহাদ বছরের প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় দ্বিতীয় প্রান্তিকে অর্জিত আর্থিক অগ্রগতির মাধ্যমে বছরের প্রথমার্থে সন্তোষজনক আর্থিক ফলাফল অর্জন করেছে। সম্প্রতি ২০১৭ সালের দ্বিতীয় প্রান্তিকের (এপিল-জুন) আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে অপারেটরটি।

প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় ব্যবসায়িক অগ্রগতির ফলে কর পরবর্তী মুনাফা ৮২ দশমিক ৮ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ৪৮৯ দশমিক ১ মিলিয়ন আরএমে দাঁড়িয়েছে, প্রথম প্রান্তিকে ছিল ২৬২ আরএম। ভারতে পরিচালিত আজিয়াটার কোম্পানি আইডিয়া দ্বিতীয় প্রান্তিকে ১০৯ দশমিক ৪ মিলিয়ন আরএম লোকসান গুণেছে এবং প্রথম প্রান্তিকে লোকসানের পরিমাণ ছিল ২৫ দশমিক ২ মিলিয়ন। তা নাহলে দ্বিতীয় প্রান্তিকে আজিয়াটার পিএটি দ্বিগুণ হতে পারত।

বাজারগুলোতে তীব্র প্রতিযোগিতা সত্ত্বেও গ্রুপের রাজস্ব ৩ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ৬ দশমিক ১ বিলিয়ন আর এমে দাঁড়িয়েছে যা কোন প্রান্তিকে অর্জিত রাজস্বের সর্বোচ্চ। প্রতিটি দেশে প্রতিযোগী কোম্পাগিুলোর তুলনায় আজিয়াটার কোম্পানিগুলো ব্যাবসায়িক দিক থেকে এগিয়ে থাকায় এ ফলাফল সম্ভব হয়েছে। এ বছরের প্রথম প্রান্তিক থেকে দ্বিতীয় প্রান্তিকে ডেটা থেকে রাজস্ব ১১ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে, এটিও এ ফলাফলে প্রভাব ফেলেছে। এখন আজিয়াটার অর্জিত মোট রাজস্বের ৪৪ দশমিক ১ শতাংশ আসছে ডেটা সেবা থেকে যা অপারেটরটিকে ইন্টারনেট সেবায় বাজারের শীর্ষ অবস্থানে নিয়ে এসেছে।

ব্যয় ও মূলধনী বিনিয়োগে পরিকল্পিত পদক্ষেপের ফলে ইবিআইটিডিএ ৫ দশমিক ৬ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ২ দশমিক ৩ বিলিয়ন আরএমে দাঁড়িয়েছে। এর ফলে প্রুপে প্রায় ৫৮০ মিলিয়ন আরএম ব্যয় সঙ্কোচন হয়েছে।

আজিয়াটা গ্রুপে ২০১৭ সালের জুন পর্যন্ত রাজস্ব ১৫ দশমিক ৭ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ১১ দশমিক ৯ বিলিয়ন আরএম, ইবিআইটিডিএ ১২ দশমিক ৪ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ৪ দশমিক ৪ বিলিয়ন আরএম এবং পিএটি ১৭ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ৭৪১ দশমিক ১ মিলিয়ন আরএম’এ দাঁড়িয়েছে।

প্রথম প্রান্তিকে আজিয়াটার নগদ মূলধন ছিল ৬ দশমিক ৭ বিলিয়ন যা দ্বিতীয় প্রান্তিকে হয়েছে ৭ দশমিক ৪ বিলিয়ন। ফলে অর্থনৈতিক অগ্রগতিকে ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে। একই সময়ে মোট ঋণ বা ইবিআইটিডিএ ২ দশমিক ৩ গুণ থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ২ দশমিক ৪ গুণ হয়েছে।

২০১৭ সালের প্রথমার্ধের ফলাফলের উপর ভিত্তি করে এ বছরের জন্য প্রতি শেয়ারে ৫ সেন অভ্যন্তরীণ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে আজিয়াটার পরিচালনা পর্ষদ।

ডেটা খাতে ক্রমবর্ধমান অগ্রগতির মাধ্যমে দক্ষিণ এশিয়ার অপারেটরগুলো থেকে রাজস্ব বৃদ্ধি পাচ্ছে। ব্যবসার সকল খাতে রাজস্ব বৃদ্ধি পাওয়ায় কিছু প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও শ্রীলঙ্কার ডায়লগ এর অগ্রগতি ধরে রেখেছে। গত প্রান্তিক থেকে এ প্রান্তিকে ইবিআইটিডিএ ২ দশমিক ৭ পার্সেন্টেজ পয়েন্ট বৃদ্ধি পেয়ে ৩৫ দশমিক ৩ শতাংশ হয়েছে। এ বছরের জুন পর্যন্ত ডায়লগ’র ডেটা থেকে অর্জিত রাজস্ব ৪৪ দশমিক ১ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে যা মোট রাজস্বের ২০ দশমিক ৫ শতাংশ।

রবি-এয়ারটেল একীভূতকরণ শেষ হওয়ার পর বাজারে একীভূত কোম্পানির রেভিনিউ মর্কেট শেয়ার ০ দশমিক ৮ পার্সেন্টেজ পয়েন্ট বৃদ্ধি পাওয়ায় দ্বিতীয় প্রান্তিকে তা ২৭ দশমিক ৫ শতাংশে দাঁড়িয়েছে এবং সেবা খাতে রাজস্ব বৃদ্ধি পেয়েছে ৭ দশমিক ৮ শতাংশ। এ বছরের জুন পর্যন্ত ডেটা থেকে রাজস্ব ৯৫ দশমিক ৬ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে যা মোট রাজস্বের ১৭ দশমিক ৪ শতাংশ। নেপালের এনসেল জুনে ফোরজি সেবা চালু করায় গত প্রান্তিক থেকে এ প্রান্তিকে রাজস্ব বৃদ্ধি পেয়েছে। ডেটা থেকে রাজস্ব ১৬ দশমিক ৯ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে যা মোট রাজস্বের ১৭ দশমিক ৪ শতাংশ।

আজিয়াটার প্রেসিডেন্ট ও গ্রুপ চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার তান শ্রী জামালুদিন ইব্রাহিম বলেন, “আমাদের পরিচালিত কোম্পানিগুলো বাজারের অন্যান্য প্রতিযোগী কোম্পানির তুলনায় রাজস্বের দিক থেকে এগিয়ে আছে। ফলে আমরা একটি মাইলফলক অর্জনে পৌঁছাতে পেরেছি- কোন প্রান্তিকে আমাদের রাজস্ব অর্জনের পরিমাণ ৬ বিলিয়ন আরএম ছাড়িয়ে গেছে। একই সাথে সেলকম ও এক্সএল’এ নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপগুলো ইতিবাচক হিসেবে দেখা দিয়েছে। ২০১৬ সালের শেষের দিকে ব্যয় ও মূলধনী বিনিয়োগে আরো পরিকল্পিতভাবে অগ্রসর হওয়ায় আজিয়াটা’র ৬শ’ মিলিয়ন আরএম সাশ্রয় হয়েছে। সব মিলিয়ে এ বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে সাফল্যম-িত ফলাফল অর্জিত হয়েছে আমাদের।”

Comments

comments

একই ধরণের সংবাদ