আপনার অবস্থান
মুলপাতা > শিল্প ও খাতসমূহ > বিদ্যুৎ ও জ্বালানী > রাশিয়া ও হাঙ্গেরিতে অনুষ্ঠিত ‘নিউকিডস’ উৎসবে বাংলাদেশি শিশুরা

রাশিয়া ও হাঙ্গেরিতে অনুষ্ঠিত ‘নিউকিডস’ উৎসবে বাংলাদেশি শিশুরা

সম্প্রতি রাশিয়া এবং হাঙ্গেরিতে আন্তর্জাতিক শিশু উৎসব ‘নিউকিডস-২০১৭’তে অংশগ্রহণ শেষে দেশে ফিরে এসেছে ৪ সদস্যের বাংলাদেশ শিশু প্রতিনিধিদল।

রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় পারমাণবিক শক্তি কর্পোরেশন-রসাটম প্রায় ৬ সপ্তাহব্যাপী এ উৎসবের আয়োজন করে। বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের সহায়তায় বাছাইকৃত শিশুরা এবারের উৎসবে অংশগ্রহণের সুযোগ লাভ করে।

বাংলাদেশ, ভারত, চীন, বেলারুশ, হাঙ্গেরি, লিথুনিয়া, নেদারল্যান্ডস, ক্রোয়েশিয়া, চেক প্রজাতন্ত্র, তুরস্ক, কাজাখস্থান, যুক্তরাষ্ট্র এবং রাশিয়াসহ মোট ১৩টি দেশের ৭৫ জন কিশোর-কিশোরী উৎসবে অংশগ্রহণ করে।

অংশগ্রহণকারী বাংলাদেশি শিশুরা হচ্ছে- বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজের সৈয়দ কায়সান ফারাজ, বীর শ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ পাবলিক কলেজের ফাতিন সাদাব, কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর মডেল পাইলট স্কুল এন্ড কলেজের মো. খাদিকুল ইসলাম পাঠান এবং সুনামগঞ্জের ছাতক বহুমুখী মডেল হাইস্কুলের ছাত্রী ফারিহা ইসলাম টিফলা।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রসাটমের সহযোগিতায় যেসব পারমাণবিক শক্তি প্রকল্প কাজ করছে বা নির্মাণাধীন রয়েছে, মূলত সেই সব প্রকল্পের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সন্তানদের মধ্যে পারস্পরিক বন্ধুত্ব তৈরি পারমাণবিক শক্তি সম্পর্কে নতুন প্রজন্মের মধ্যে ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি সৃষ্টি এবং শিশুদের মধ্যে সুপ্ত সাংস্কৃতিক প্রতিভা বিকাশে সহায়তাই এই কর্মকাণ্ডের মূল লক্ষ্য।

দীর্ঘ কর্মসূচির প্রথমদিকে রাশিয়ার বিখ্যাত সঙ্গীত, নৃত্য ও নাট্য পরিচালকদের তত্ত্বাবধানে শিশুদের গীতিনাট্য পরিবেশনার জন্য প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। পরবর্তী সময়ে তারা রাশিয়ার বিভিন্ন শহর যেমন-সেন্ট পিটার্সবার্গ, মস্কো, সারোভ, নিঝনি নভ্গোরাদ এবং হাঙ্গেরির পাকস্ ও কালোচ শহরে দর্শকদের সামনে গীতিনাট্য পরিবেশন করার মাধ্যমে ভূয়সী প্রশংসা লাভ করে।

সমাপনী গালাকন্সার্ট অনুষ্ঠিত হয় ১৭ ও ১৮ আগস্ট মস্কোর বিখ্যাত হেলিকন অপেরা থিয়েটারে। এছাড়াও শিশুদের বিভিন্ন ঐতিহাসিক ও আকর্ষণীয় স্থান, স্থাপনা ঘুরে দেখানো হয়, বিনোদন ও শিক্ষামূলক কর্মকাণ্ডও অন্তর্ভুক্ত ছিল উৎসবের প্রোগামে।

রসাটম ২০০৯ সাল থেকে নিয়মিভাবে প্রতি বছর নিউকিডস বা নিউক্লিয়ার কিডসের আয়োজন করে আসছে। এ নিয়ে ৩য় বার বাংলাদেশি শিশুরা উৎসবে অংশগ্রহণে সুযোগ পেল।

রসাটম পাবনা জেলার রূপপুরে বাংলাদেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। এ প্রকল্পে প্রতিটি ১২০০ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতাসম্পন্ন সর্বাধুনিক ৩+ প্রজন্মের ২টি বিদ্যুৎ ইউনিট স্থাপন করা হচ্ছে।

Comments

comments

একই ধরণের সংবাদ