আপনার অবস্থান
মুলপাতা > শিল্প ও খাতসমূহ > তথ্য প্রযুক্তি > ব্যবসায়িক ধারণা উপস্থাপনে হেলসিঙ্কিতে যাচ্ছে তরুণ বাংলাদেশি উদ্যোক্তারা

ব্যবসায়িক ধারণা উপস্থাপনে হেলসিঙ্কিতে যাচ্ছে তরুণ বাংলাদেশি উদ্যোক্তারা

৩৭টি দলের মধ্যে বিজয়ী নির্বাচিত হয়ে বৈশ্বিক বিনিয়োগকারীদের সামনে ব্যবসায়িক ধারণা উপস্থাপনে ফিনল্যান্ডের হেলসিঙ্কিতে যাচ্ছে তিনটি দল।

গ্রামীণফোনের হোয়াইট বোর্ডের পৃষ্ঠপোষকতায় বাংলাদেশে আয়োজিত স্লাশ গ্লোবাল ইমপ্যাক্ট অ্যাকসেলেরেটর (জিআইএ)- এর মাধ্যমে এ সুযোগ পাচ্ছে তরুণ বাংলাদেশি উদ্যোক্তারা।

ফিনল্যান্ডের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও বিশ্বব্যাপী অন্যান্য অংশীদারদের যৌথ সহযোগিতায় বাংলাদেশে স্লাশ জিআইএ অনুষ্ঠিত হয়। ইউরোপের শীর্ষস্থানীয় স্টার্টআপ ও প্রযুক্তি বিষয়ক কর্মসূচি স্লাশ জিআইএ স্টার্টআপ এবং প্রযুক্তি বিষয়ক অন্যান্য প্রতিষ্ঠান ও প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সাথে প্রথমসারির আন্তর্জাতিক বিনিয়োগকারী, নির্বাহী এবং মিডিয়ার সাথে সংযোগ স্থাপনে ভূমিকা পালন করে।

বিশ্বের অনেক দেশেই স্লাশ স্থানীয় নানা কর্মসূচি, অনুষ্ঠান ও প্রতিযোগিতার আয়োজন করে যেখানে ওই দেশের স্টার্টআপগুলো নিজ দেশের প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগের পাশাপাশি, বিজয়ী শীর্ষ তিন স্টার্টআপের একটি হিসেবে স্লাশ জিআইএ’র মতো বৈশ্বিক প্ল্যাটফর্মে নিজেদের ব্যবসায়িক ধারণা উপস্থাপনের সুযোগ গ্রহণে কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে।

স্লাশ জিআইএ’র বৈশ্বিক প্ল্যাটফর্মে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করতে পারে এমন স্টার্টআপের সন্ধানে এমল্যাবের সহযোগিতায় এ বছর বাংলাদেশে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে গ্রামীণফোনের হোয়াইট বোর্ড।

প্রতিযোগিতায় বিজয়ী তিন স্টার্টআপ হল সার্জ এঞ্জিনিয়ারিং (বহনযোগ্য বায়োগ্যাস প্ল্যান্ট), বিনো (শিক্ষার জন ভার্চুয়াল এনিমেশন) এবং জলপাই (গ্যাস নিস্বরণ খোজার আইওটি ডিভাইস)। স্লাশ বৈশ্বিক সম্মেলনে অংশগ্রহণ উপলক্ষে বিজয়ী দলগুলো একটি অনলাইন প্রি-ইভেন্ট কোচিং – এ অংশগ্রহণের পাশাপাশি, আগামী ১৫ নভেম্বর থেকে ২ ডিসেম্বর একটি বুট ক্যাম্পে অংশগ্রহণ করবে।

এ বছর প্রায় ১১৩টি স্টার্টআপ বাংলাদেশ পর্বের প্রতিযোগিতায় তাদের ব্যবসায়িক ধারণা নিয়ে অংশগ্রহণ করে। গত ২৯ জুলাই স্টার্টআপগুলোর প্রাথমিক বাছাই পর্ব অনুষ্ঠিত হয় যেখান থেকে ৩৭টি স্টার্টআপ পরবর্তী ধারণা উপস্থাপন পর্বের জন্য মনোনীত হয়। এরপর গত ৫ আগস্ট অনুষ্ঠিত ধারণা উপস্থাপন পর্বে অংশগ্রহণকারীরা এ বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের সামনে তাদের ব্যবসায়িক ধারণার উপস্থাপন করেন। যেখান থেকে পুঙ্খানুপুঙ্খ মূল্যায়নের ভিত্তিতে তিনটি স্টার্টআপকে সেরা হিসেবে নির্বাচিত করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী মাইকেল ফোলি।

ইমপ্যাক্ট-ড্রিভেন স্টার্টআপগুলোকে সহায়তা করতে এবং সম্প্রসারণশীল বাজারে আকর্ষণীয় ব্যবসার সুযোগ তৈরি করাই স্লাশের উদ্দেশ্য। একইসাথে এটা ২০৩০ সালের এজেন্ডা বাস্তবায়ন এবং জটিল সব সমস্যা সমাধানের জন্যও গুরুত্বপূর্ণ।

এ বছর অনুষ্ঠিতব্য জিআইএ ২০১৭ ইমপ্যাক্ট-ড্রিভেন উদ্যোগগুলোকে তাদের ব্যবসায়িক প্রবৃদ্ধিতে, বাড়তি অর্থায়ন সুযোগ সৃষ্টিতে এবং দীর্ঘস্থায়ী নেটওয়ার্ক নির্মাণে ভূমিকা রাখবে। (সংবাদ বিজ্ঞপ্তি)

Comments

comments

একই ধরণের সংবাদ