আপনার অবস্থান
মুলপাতা > শিল্প ও খাতসমূহ > তথ্য প্রযুক্তি > ‘ডিজিটাল উইনারস এশিয়া চ্যাম্পিয়ন ২০১৬’ বিজয়ী থাইল্যান্ডের স্টার্টআপ টেক মি ট্যুর

‘ডিজিটাল উইনারস এশিয়া চ্যাম্পিয়ন ২০১৬’ বিজয়ী থাইল্যান্ডের স্টার্টআপ টেক মি ট্যুর

gp-dwআজ অনুষ্ঠিত টেলিনর গ্রুপের প্রথম আঞ্চলিক স্টার্টআপ সম্মেলন ডিজিটাল উইনারস এশিয়া’র বিজয়ী হয়েছে থাইল্যান্ডের স্টার্টআপ টেক মি ট্যুর। পাকিস্তান, বাংলাদেশ, মিয়ানমার, থাইল্যান্ড এবং মালয়েশিয়ার শীর্ষস্থানীয় সাতটি স্টার্টআপকে পেছনে ফেলে বিজয়ী হয়েছে থাইল্যান্ডের স্টার্টআপটি। বিজয়ী দল নিজেদের দেশে ফিরে গিয়ে প্রাথমিকভাবে বিনিয়োগ করার জন্য নরওয়েজিয়ার মুদ্রায় ১ লাখ ক্রোনার পাবে। এর পাশাপাশি, তারা প্রতিবেশী দেশে ব্যবসা বিস্তৃতির জন্য নেটওয়ার্ক, জ্ঞান ও সম্পদগত সহায়তা পাবে।

প্রযুক্তিখাতে উদীয়মান অঞ্চল মিয়ানমারের ইয়াঙ্গুনে এশিয়ার প্রথম স্টার্টআপ সম্মেলন ডিজিটালস উইনারস এশিয়া অনুষ্ঠিত হয়। টেলিনর গ্রুপের অ্যাকসেলেরেটর কর্মসূচি ও বাজারের শীর্ষস্থানীয় স্টার্টআপ এবং দু’দিনব্যাপী প্রতিযোগিতার মাধ্যমে এশিয়ার মেধাবী ও শীর্ষস্থানীয় স্টার্টআপগুলোকে একমঞ্চে নিয়ে আসতে ডিজিটাল উইনারস এশিয়া অনুষ্ঠিত হয়।

সম্মেলনটিতে স্টার্টআপগুলো এবং গুগল, গোল্ডেন গেট ভেঞ্চার ও টেলিনর গ্রুপের নিজসে উদ্ভাবন সমূহের মতো ভেঞ্চার ক্যাপিটাল কমিউনিটিসের মধ্যে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

টেলিনর গ্রুপের নিউ ভেঞ্চারের ডিরেক্টর জোহান্না স্টাফ বলেন, ‘পুরো এশিয়া থেকে সম্ভাবনাময় স্টার্টআপগুলোকে আমাদের প্রথম ডিজিটাল উইনারস এশিয়া সম্মেলনএ নিয়ে আসা শুধুমাত্র অনুপ্রেরণাদায়কই নয় পাশাপাশি এ অঞ্চল থেকে অসামান্য প্রতিভা উঠে আসারই ইঙ্গিত। মনোনীত প্রতিটি দলই অত্যন্ত শক্তিশালী ও ডায়নামিক।’ তিনি আরও বলেন, ‘বড় পরিসরে উদ্ভাবনী নানা বিভাগে বৈচিত্র্যময় এমন একটি অনুষ্ঠান আয়োজনে স্বাগতিক দেশ হিসেবে মিয়ানমার সামর্থ  আসলে প্রযুক্তিখাত সম্প্রসারণে মিয়ানমারের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের ইঙ্গিত। এটা আসলেই অনেক বড় সম্মান।’

থাইল্যান্ডে একদিনে ভ্রমণের সহায়তা প্রদানের লক্ষ্য নিয়ে বিজয়ী দল টেক মি ট্যুরের চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার এবং সহ-প্রতিষ্ঠাতা জিন্দা আপিরাকসা আমোরনচেদ এবং স্টার্টআপটির চিফ অপারেশন অফিসার ও আরেক সহ-প্রতিষ্ঠাতা নোপ্পোন আনুকুনউইথায়া ব্যাংককভিত্তিক স্টার্টআপটি প্রতিষ্ঠা করেন। নিজেদের দেশে ব্যবসা সম্প্রসারণে তারা তাদের এ অভিজ্ঞতা প্রয়োগ করবেন এবং টেলিনর গ্রুপের আর্থিক সহায়তার মাধ্যমে মিয়ানমারের বাজারে প্রবেশের পরিকল্পনা রয়েছে তাদের।

এ নিয়ে জিন্দা আপিরাকসা আমোরনচেদ বলেন, ‘আমাদের মতো স্টার্টআপগুলোর জন্য ডিজিটাল উইনারস এশিয়া সম্মেলন হচ্ছে স্বপ্ন সত্যি হওয়ার প্ল্যাটফর্ম। আমরা ডিটাক অ্যাকসেলেরেটর কর্মসূচি দিয়ে শুরু করেছি। আর এ মুহূর্তে আমরা অন্যান্য বাজারে প্রবেশের মতো সামর্থ অর্জন করেছি। এ সম্মেলনে বক্তারা এবং তাদের ব্যক্তিগত পরামর্শ অমূল্য ছিলো।’

এশিয়াজুড়ে টেলিনরের পাঁচটি স্টার্টআপ ইনকিউবেশন ও অ্যাকসেলেরেটর কর্মসূচির বর্তমান ও আগের অংশগ্রহণকারী আটটি দল ডিজিটাল উইনারস এশিয়াতে অংশগ্রহণ করে। ব্যবসায়িক সম্ভাবনা, বাজারে টিকে থাকা এবং টেলিনরের সঙ্গে প্রবৃদ্ধির ওপর ভিত্তি করে প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে বাছাই করা হয়েছে। অংশগ্রহণকারী স্টার্টআপগুলো সম্মেলনের উদ্বোধনী দিনে বহুমুখী খাত যেমনঃ বিপণন সেবা, বিদ্যুৎ, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, ভ্রমণ ও শিক্ষা খাত নিয়ে প্রতিনিধিত্ব করে।

Comments

comments

একই ধরণের সংবাদ