আপনার অবস্থান
মুলপাতা > শিল্প ও খাতসমূহ > বিমান > এমিরেটস্ ও ফ্লাইদুবাইয়ের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ পার্টনারশিপের সূচনা

এমিরেটস্ ও ফ্লাইদুবাইয়ের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ পার্টনারশিপের সূচনা

দুবাইভিত্তিক দুটি বিমান সংস্থা- এমিরেটস্ এবং ফ্লাইদুবাই গতকাল, ১৭ জুলাই একটি নতুন ধরনের পার্টনারশিপের ঘোষণা প্রদান করেছে। এই পার্টনারশিপে দুটি এয়ারলাইন তাদের ব্যবস্থাপনায় স্বতন্ত্র অক্ষুণœ রেখে একে অপরের নেটওয়ার্ক ব্যবহার করবে।

সমন্বিত শিডিউলের মাধ্যমে নেটওয়ার্ক সহযোগিতার ওপর গুরুত্ব দেয়া হয়েছে এ পার্টনারশিপে। এর ফলে একটি এয়ারলাইনের যাত্রীরা কোন ঝামেলা ছাড়াই অন্য এয়ারলাইনের নেটওয়ার্কভুক্ত গন্তব্যে ভ্রমণ সুবিধা পাবেন। এ লক্ষ্যে উভয় এয়ারলাইন দুবাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নিজস্ব হাবে তাদের সিস্টেম ও অপারেশন সমন্বয় করবে।

এমিরেটস্ গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী এবং একই সঙ্গে ফ্লাইদুবাইয়ের চেয়ারম্যান শেখ আহমেদ বিন সাইদ আল মাকতুম এই পারস্পরিক সহযোগিতাকে পার্টনারশিপের ক্ষেত্রে একটি কমপ্লিমেন্টারি মডেল হিসেবে আখ্যায়িত করে বলেন যে, এর মাধ্যমে উভয় এয়ারলাইনের গ্রাহকদের জন্য বিপুল পরিমাণের ভ্যালু যুক্ত হওয়ার সম্ভাবনা উন্মুক্ত হলো।

২৫৯টি উড়োজাহাজের বিশাল বহর নিয়ে এমিরেটস্ বিশ্বের ৬টি মহাদেশে ১৫৭টি গন্তব্যে চলাচল করছে। অন্যদিকে ফ্লাইদুবাইয়ের বহরে উড়োজাহাজের সংখ্যা ৫৮টি এবং তাদের নেটওয়ার্কে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে ৯৫টি গন্তব্য।

২০২২ সাল নাগাদ সমন্বিত নেটওয়ার্কে গন্তব্যের সংখ্যা ২৪০ এ উন্নীত হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

এমিরেটস্ এবং ফ্লাইদুবাই বর্তমানে কমার্শিয়াল, নেটওয়ার্ক প্ল্যানিং, এয়ারপোর্ট অপারেশন্স, কাস্টমার জার্নি এবং ফ্রিকোয়েন্ট ফ্লায়ার প্রোগ্রামের সমন্বয় নিয়ে কাজ করছে।

পার্টনারশিপটি আগামী কয়েক মাসের মধ্যে কার্যকর হবে। চলতি বছরের শেষ কোয়ার্টরে বর্ধিত কোড শেয়ারের মাধ্যমে এর সূচনা হবে।

ফ্লাইদুবাই এবং এমিরেটস্ উভয়ের স্বত্বাধিকারী প্রতিষ্ঠান হচ্ছে ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব দুবাই। তবে উভয় বিমান সংস্থাই স্বাধীনভাবে স্বতন্ত্র ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত হচ্ছে।

Comments

comments

একই ধরণের সংবাদ