আপনার অবস্থান
মুলপাতা > ব্যাবসায়ী সংগঠন > চেম্বার > বিশিষ্ট ১০ তরুণকে ‎‎স্বীকৃতি দিবে জেসিআই

বিশিষ্ট ১০ তরুণকে ‎‎স্বীকৃতি দিবে জেসিআই

JCI-Award১০ বাংলাদেশি তরুণকে তাদের কার্যক্ষেত্রে অতুলনীয় অবদান রাখার জন্য জেসিআই বাংলাদেশ স্বীকৃতি দেয়ার ঘোষণা করেছে। এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তারা এ ঘোষণা দেন।

সম্মাননা দেয়ার জন্য সফল তরুণদের নাম বাছাই করা শুরু হয়েছে। এই বাছাই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে যে ১০ সফল তরুণকে পাওয়া যাবে তারাই প্রতিনিধিত্ব করবে পুরো বিশ্বের এমনটাই প্রত্যাশা জেসিআই এর।

টেন আউট¯ট্যান্ডিং ইয়ং পারসন অফ বাংলাদেশ বা [টিওওয়াইপি বাংলাদেশ] কার্যক্রমের উদ্দেশ্য হলো দেশের এই সফল তরুণদের স্বীকৃতি দেয়ার মধ্য দিয়ে তাদের ক্ষেত্রের সাফল্যগাঁথা দেশের অপরাপর তরুণদের মধ্যেও ছড়িয়ে দেয়া। এতে অন্যান্য তরুণরাও এগিয়ে যেতে পাবেন অনুপ্রেরণা।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ইরফান ইসলাম, ন্যাশনাল ট্রেজারার অ্যান্ড চেয়ার অর্গানাইজিং কমিটি (টি.ও.ওয়াই.পি), নজরুল ইসলাম, ইমিডিয়েট পাস্ট ন্যাশনাল প্রেসিডেন্ট, মির শাহেদ আলী, ন্যাশনাল ডিরেক্টর অ্যান্ড কো-চেয়ার অর্গানাইজিং কমিটি (টি.ও.ওয়াই.পি), আমজাদ হোসেইন, ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং অন্যান্য উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা বৃন্দ।

সুস্থ-সুন্দর সমাজ গঠনের জন্য যোগ্য নেতৃত্ব প্রয়োজন। যা আমাদের তরুণদের দ্বারাই সম্ভব। বিশিষ্ট ১০ জনকে তাদের সফলতার স্বীকৃতি দিয়ে মুলত তরুণদের যোগ্য নেতৃত্বকেই উৎসাহিত করা হচ্ছে বলে জেসিআই।

সংবাদ সম্মেলনে জেসিআই বাংলাদেশের সভাপতি শাখাওয়াৎ হোসেন মামুন বলেন-“ তরুন-যোগ্যদের তাদের প্রাপ্য স্বীকৃতি দেয়ার জন্য প্রাথমিক বাছাই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। প্রাথমিক বাছাইয়ের এই প্রক্রিয়ায় বিভিন্ন শাখায় মনোনয়নের ক্ষেত্রে ব্যবসায় অবদান রাখার জন্য,সমাজে নিজের কাজের মধ্যদিয়ে মানব সেবায় যিনি নিয়োজিত আছেন তাদের মনোনয়ন দেয়া হবে। চিকিৎসা শাস্ত্র এবং সংস্কৃতিতে অবদান রাখছেন যিনি তিনিও আবেদন করতে পারবেন। আমাদের তরূণরা কঠোর প্ররিশ্রমের মধ্য দিয়ে তাদের কাজের পরিধি বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিতে পারবে। আর্ন্তজাতিক এই অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে তরুণরা যে অনুপ্রেরণা পাবে বিশ্বে ইতিবাচকভাবে তারা বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করতে পারবে। আমাদের যোগ্য তরুণরা বিশ্বের অন্যান্য তরুণদের কাছে রোল মডেল হয়ে উঠবে বলে আমাদের বিশ্বাস।”

মামুন আরো জানান-”আমরা আপনাদের কাছেও নাম প্রত্যাশা করছি যে আপনার পরিচিত এমন যোগ্য-সফল ব্যাক্তি যদি থাকেন প্রাথমিক বাছাইয়ে তাদের নামও আপনারা দিতে পারেন।”

১৮ থেকে ৪০ বছর বয়সী তরুণ সক্রিয়দের বিশ^ব্যাপি এক সংগঠন জেসিআই। যারা সমাজ বদলে অঙ্গীকারাবদ্ধ এবং নিজ কাজের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তে চান সারা বিশ্বে তাদের জন্যই বিশ্বব্যাপী কাজ করছে জেসিআই। ১১৫টি দেশের ২ লক্ষ সদস্য এই কার্যক্রমের আওতায় আছেন।

শ্রেষ্ঠ তরুণদের স্বীকৃতি দেয়ার এই প্রক্রিয়া জেসিআই বাংলাদেশ তৃতীয়বারের মত এই দেশে আয়োজন করতে যাচ্ছে। এর আগে জাতীয় দলের খেলোয়ার সাকিব আল হাসান.বেসিস এর সভাপতি শামীম আহসান,জাগো’র প্রতিষ্ঠাতা করভী রাকশান্দ,অ্যাক্টিভিস্ট মিনহাজ আনোয়ারের মত সফল তরুণরা এই সম্মানে ভুষিত হয়েছিলেন।

Comments

comments

একই ধরণের সংবাদ